Header Ads

কঠোর প্রতিশোধ নেবো : জো বাইডেন

আফগানিস্তান এর কাবুল শহরে বিমানবন্দরে তালেবানদের সদস্যদের বোমা হামলায় ১৩ জন মার্কিন সেনা হত্যা এবং ৬০ জন আহত হওয়ার ঘটনায় প্রতিশোধ নেবেন বলে জানিয়েছেন বর্তমান যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো-বাইডেন। গতকাল বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে নিহত'দের প্রতি শোক প্রকাশ এর সময় এসব কথা বলেন তিনি।
"খবর প্রকাশক বার্তা সংস্থা এপি"

Photo Credit : AP News 

উক্ত বোমা হামলার ঘটনায় মার্কিন সৈন্য ছাড়াও নিহত হয়েছেন আফগান সেনারাও । এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন জো বাইডেন। নিহত সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য  সারা দেশে পতাকা অর্ধ-নমিত এবং কিছু সময়ের জন্য নীরবতা পালন করে হোয়াইট হাউস এ উপস্থত সবাই । পরে দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে বাইডেন বলেন, 'কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তা আমাদের অজানা নয়। আমরাও শীগ্রই প্রতিক্রিয়াশীল হব, আমাদেরও সময় আসবে। আমরা ক্ষমা করব না, আমরা এই হামলার কথা কখনও ভুলেও যাব না। হামলাকারীদের অবশ্যই অবশ্যই খুঁজে বের করব এবং কঠিন প্রতিশোধ নেব।'


মার্কিন  প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আরও বলেন, 'জঙ্গিরা কখনও জিতবে না, এই লড়াইয়ে আমরা অবশ্যই জিতব। কারণ আমরা তাদের কখনও ভয় পাই না। তারা আমাদের কিছুই করতে পারবে না।
আগেই আমরা আমাদের সেনাদের সেখান থেকে সরিয়ে আনব।'

জো বাইডেনের এই প্রতিশোধ নেওয়ার কথা জানানোর আগেই সৈন্য সরিয়ে নেওয়ার জন্য যিনি দেখভাল করছেন সেই গেন ম্যাককেঞ্জি বললেন, 'মার্কিন ও আফগান' সেনা নিহতের এই ঘটনায় আমরা শোকাহত। খুব  দ্রুতই আমরা সেনা সরিয়ে নিবো। গত বৃহস্পতিবার সরানোর কথা ছিল ৫০০০ সৈন্য।'

তবে কথা রয়েছে ৩১ আগস্ট সব মার্কিন সেনা আফগানিস্তান ছাড়বে। তার আগে মার্কিন সেনাদের মতো অনেক আফগানিস্তানি দেশ ছাড়তে চায়। ইতোমধ্যে লোকজনকে সরিয়ে নিতে ব্যাপক কর্মযজ্ঞের মধ্যেই সম্ভাব্য হামলার প্রাথমিক সতর্কতা জারি করেছিল পশ্চিমা দেশগুলো। বিমানবন্দর এড়িয়ে চলতে আফগান নাগরিকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছিলো বেশ কয়েকটি দেশ। সেখানের এক কর্মকর্তা বলেন, সেখানে আত্মঘাতী হামলার ঝুঁকি রয়েছে তীব্র। আগে কাবুল বিমানবন্দরে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় সেখানে না যেতে নাগরিকদের প্রতি সতর্কতা জারি করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ তাদের মিত্রদেশ গুলো। ইসলামিক স্টেট জঙ্গিগোষ্ঠী  হামলা চালানোর হুমকি দেওয়ার কারণে এই সতর্কতা জারি করা হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হিসাবে, ১৪ আগস্ট থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৮২ হাজারেরও বেশি মার্কিন ও আফগান নাগরিক কাবুল ছাড়তে সক্ষম হয়েছেন। এখনও আফগানিস্তান ছাড়ার অপেক্ষায় আছেন ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ। যতই দিন যাচ্ছে ততই আফগানদের নিরাপত্তা নিয়ে সঙ্কা বাড়ছে। উত্তাল আফগানিস্তান থেকে নিজ দেশের নাগরিকদের ফিরিয়ে নেওয়া অব্যাহত রেখেছে মেক্সিকো, লিথুয়ানিয়া এবং আরও বিভিন্ন দেশ।

সম্প্রতি কাবুল বিমানবন্দরে মানবেতর পরিস্থিতি তৈরি হওয়া সত্তেও তালেবানের হাতেই নিজেদের সপে দিতে শুরু করেছে অনেক আফগান নাগরিক। আফগান তালেবানের হাতে চলে যাওয়ার ২ সপ্তাহ হতে চলেছে। নতুন এমন পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছেন নাগরিকরা। তবে দশ দিন ধরে ব্যাংক বন্ধ থাকার কারণে অর্থনৈতিক মন্দার এবং খাদ্য সংকট চরমে পৌঁছেছে সেখানে।

অপরদিকে তালেবানের হাতে শাসন ক্ষমতা চলে গেলেও তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করছে কাবুলের উত্তরাঞ্চল এর পাহাড়ি এলাকার পাঞ্জশির এর মানুষ। ইতো মধ্যে সরকারি বাহিনীর বাকী সদস্যদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন অঞ্চলটির তালেবান বিরোধী সশস্ত্র গোষ্ঠীদয়। পাঞ্জশিরে তালেবানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের জন্যও প্রস্তুত বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছে তারা ।

সূত্র : বর্তা সংস্থা এপি

Post a Comment

Previous Post Next Post

Google Ads

Next Part Google Ads